এবার অনলাইনে আয় করুন ওয়েবসাইট বানিয়ে বিক্রয় করে

অনলাইনে আয়ের অনেকগুলো পদ্ধতির মধ্যে একটি জনপ্রিয় পদ্ধতি হচ্ছে ওয়েবসাইট বানিয়ে বিক্রয় করা। যদি নিশ নিয়ে করা ওয়েবসাইট হয় তাহলে বিক্রির সম্ভাবনা অনেক বেড়ে। নিশ বা নিশ মার্কেটিং সম্পর্কে জানতে চাইলে আমার আগের পোষ্টটি দেখে আসতে পারেন। আজকে আমরা পর্যায়ক্রমে কিভাবে একটি সুন্দর ওয়েবসাইট বানিয়ে বিক্রি করা যায় সেটি দেখব। চলুন শুরু করা যায়।

অনলাইনে ওয়েবসাইট বিক্রয়

এবার অনলাইনে আয় করুন ওয়েবসাইট বানিয়ে বিক্রি করে

ডোমেইন নেম ও হোস্টিং নেয়া

প্রথমে আপনাকে ঠিক করে নিতে হবে আপনি কি বিষয়ের উপর ওয়েবসাইট বানাবেন। আপনি যেটির উপর  খুব পারদর্শী কিংবা ওয়েবসাইট সুন্দর করে সাজাতে পারবেন বলে মনে হয় সেটি আগে সেট করে নেন। পরের ধাপ হচ্ছে ডোমেইন কেনা। ওয়েবসাইট ভালো দামে বিক্রি করার প্রাথমিক ওয়ে হচ্ছে একটা সুন্দর ডোমেইন নাম পছন্দ করা। অনেক সময় আমাদের পছন্দনীয় অনেক ডোমেইন কেনার সময় দেখা যায় খালি থাকেনা। তাই ডোমেইন কেনার ক্ষেত্রে সুবিধার জন্য নেমম্যাশডোমেইন বট এই দুটো টুলস ব্যবহার করতে পারেন।ডোমেইন দাম নিবে ১০০০ টাকা এর মধ্যে।

হোস্টিং কেনার ক্ষেত্রে ভালো মানে কোন কোম্পানীর শেয়ারড হোস্টিং প্যাকেজ কিনেই শুরু করতে পারেন। ১ জিবি ভালো মানের হোস্টিং নিলেই আপাতত কাজ শুরু করা যাবে।

ডোমেইন এবং হোস্টিং এর বিষয়ে কিছু জানার থাকলে অথবা অফার পেতে চাইলে এখানে যোগাযোগ করুন

ওয়েবসাইট তৈরি

এবার অনলাইনে আয় করুন ওয়েবসাইট বানিয়ে বিক্রি করে

বর্তমানে ওয়েবসাইট তৈরি করার ক্ষেত্রে আপনি অনেকগুলো ফ্রি সফটওয়্যার পাবেন। এর মধ্যে অন্যতম ওয়ার্ডপ্রেস। আমি ওয়েবসাইট তৈরি করতে ওয়ার্ডপ্রেস কেই প্রাধান্য দেই।আমাদের এই ওয়েবসাইট বানানো হয়েছে এই ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করেই। ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে বর্তমানে সর্বাধিক জনপ্রিয় ব্লগ পাবলিশিং অ্যাপলিকেশনস এবং শক্তিশালী কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (CMS), যা পিএইচপি এবং মাইএসকিউএল দ্বারা তৈরিকৃত ওপেন সোর্স ব্লগিং সফটওয়্যার। ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে কিভাবে খুব সহজে ওয়েবসাইট বানাবেন এবং চালাবেন তার উপর বাংলা টিউটোরিয়াল পাবেন এইখানে। এছাড়াও আপনি অন্যান্য ওয়েবসাইট স্ক্রিপ্ট বা সিএমএস ব্যবহার করতে পারেন। ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটের অনেকগুলো সুবিধা হচ্ছেঃ

  • প্রয়োজনীয় প্লাগিন ও বিশাল কমিউনিটি। যেকোন সমস্যায় সহযোগিতা পাওয়া যায়।
  • সার্চ ইঞ্জিন ও সোসাল মিডিয়া ফ্রেন্ডলি।
  • আপনার সাইটের ফুল কন্ট্রোল আপনার কাছে থাকবে। আপনার সাইটের উপর কর্তৃত্ব করতে কেউ আসবে না।
  • আপনি যেকোন প্লাগিন ইন্সটল করে ব্যবহার করতে পারবেন।
  • আপনি যেকোন থিম ইন্সটল করতে পারবেন এবং থিমকে আপনার ইচ্ছামত মডিফাই করতে পারবেন।
  • আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারবেন অ্যাড প্রদর্শন করে।

ওয়ার্ডপ্রেস সেটাপ করে বিশাল থিম ডাইরেক্টরি থেকে পছন্দনীয় থিম নিয়ে সাইটে সেটাপ করে দিন। এছাড়া প্রয়োজনীয় প্লাগিন যেমন, এসইও ও এনালাইটিকস প্লাগিন ইন্সটল করে নিন সাথে সিকিউরিটি ও ব্যাকাপ প্লাগিন।

রিচ ও ইউনিক কন্টেন্ট তৈরি

আপনার ওয়েবসাইট যত জনপ্রিয় হবে তত আপনি ভালো দামে ওয়েবসাইট বিক্রি করতে পারবেন। তাই ওয়েবসাইট ইউনিক আর্টিকেল দিয়ে সাজাতে হবে যে টপিকের উপর আপনি ওয়েবসাইট বানিয়েছেন।কপি-পেষ্ট কন্টেন্ট দিয়ে ওয়েবসাইট বানালে ভালো দাম পাবেন না। কন্টেন্ট লেখার সময় এবং কন্টেন্ট দিয়ে ব্লগ সাজানোর পর ওয়েবসাইটের এসইও করতে হবে যাতে ভিজিটর বাড়ে। ভিজিটর বাড়ানোর জন্য এই পোস্টটি পড়তে পারেন।

ওয়েবসাইট বিক্রয়

এবার অনলাইনে আয় করুন ওয়েবসাইট বানিয়ে বিক্রি করে

ওয়েবসাইট বানালেন এবং মোটামুটি ভালো ভিজিটরও আসে এখন ওয়েবসাইট বিক্রয় করবেন কিভাবে? অনেকেই হয়তো জানেন না ওয়েবসাইট বিক্রির জন্য অনেকগুলো প্ল্যাটফরম আছে।

  • Flippa.com – ফ্লিপ্পা অস্ট্রেলিয়ান একটা ওয়েবসাইট বিক্রির প্ল্যাটফরম যেখানে আপনি আপনার নতুন, পুরাতন ওয়েবসাইট কিংবা ডোমেইন বিক্রি করতে পারেন বা বিক্রেতাদের জন্য বিজ্ঞাপন দিতে পারেন। এখানে ওয়েবসাইট নিলামে তোলার ব্যবস্থাও আছে।
  • Empireflippers.com – এটিও ফ্লিপ্পা এর মত জনপ্রিয় একটা ওয়েবসাইট বিক্রির প্ল্যাটফরম।

এছাড়াও আরো অনেকগুলো ফোরাম/ওয়েবসাইট আছে যেখানে আপনি আপনার ওয়েবসাইট বিক্রি করতে পারবেন। এছাড়া বিভিন্ন সাইট মালিকদের ইমেইল সংগ্রহ করে সেগুলোতেও আপনি পার্সোনালী মেইল করতে পারেন আপনার ওয়েবসাইট বিক্রির জন্য।

ওয়েবসাইটের ভাল দাম পাবার ক্ষেত্রে কিছু লক্ষ্যনীয় বিষয়

  • ইউনিক ডিজাইন ও ইউনিক কন্টেন্ট হলে ভাল দাম পাওয়া যাবে।
  • অনেক পুরানো ডোমেইন বা ওয়েবসাইট হলে ভালো দাম পাওয়া যায়।
  • নিশ কিওয়ার্ড বা আনকমন টপিক নিয়ে করলে ভালো দাম পাওয়া যায়।
  • সাইটে শপ কিংবা ইকমার্স সেকশান থাকলে ভালো দাম পাওয়া যায়।
  • সাইট মানিটোনাইজ করা থাকলে ভালো দাম পাওয়া যায়।

সবাইকে পোষ্টটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ। কোন পরামর্শে কিংবা জিজ্ঞাসা থাকলে আমাকে ফেসবুকে জানাতে পারেন। লেখাটি আপনাদের ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Leave a Reply