কনটেন্ট মার্কেটিং এবং র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন একসাথে কাজ করার উপায়

কনটেন্ট মার্কেটিং এবং র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) এক সাথে কাজ করে প্রত্যেকটি, একটি নিখুত সাদৃশ্য তৈরি করতে সক্ষম হয়ে থাকে। তাদের কে এক এক টি যন্ত্র হিসেবে ধরা যায় । আবার, কনটেন্ট মার্কেটিং এবং র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) এই দুটুকে প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ভাবা হয়। কয়েক বছর আগেও অনেক অনলাইন মার্কেটিং ম্যানেজাররা কনটেন্ট মার্কেটিং-কে গুরুত্ব হিসেবে ধরতো না। তারা জানতোই না যে, কিওর্য়াড ভিক্তিকি একটা ভালো মানের কনটেন্ট র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও)-এর জন্য বা রেংকিয়ের জন্য যেমন উপকারি অপরদিকে এটি ট্র্যাফিকদের ক্ষেত্রে বেশ উপকারি।

কনটেন্ট মার্কেটিং র্সাচ ইঞ্জিন মার্কেটিং-এর একটি বড় অংশ। কনটেন্ট মার্কেটিং এবং র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) একটি আর একটি সাথে ঘনিষ্ট সম্প্রিক্ত। কনটেন্ট মার্কেটিং এর উদ্দেশ্য আকর্ষণ এবং ধারাবাহিকভাবে ভোক্তা বৃদ্ধিকরা করা। আমরা আজ দেখবো কনটেন্ট মার্কেটিং এবং এসইও কিভাবে একসাথে কাজ করে।

12

কনটেন্ট মার্কেটিং এবং র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) র্পাথক্যঃ

র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) এবং কনটেন্ট মার্কেটিং একে ওপড়ের সমপতিত অংশ। কিন্তু কি র্পাথক্য আছে এদের মধ্যে।

র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও)-এর অন সাইট হলো একটি টেকনিক্যাল বিষয়ঃ এটির মধ্যে রয়েছে যে, আপনার এট্রাকটিভ টাইটেল দেওয়া, ইউয়ারেল কারেকশন করা, অল্টার ট্যাগ দেওয়া, সাইট ম্যাপ করা। এইগুলো কনটেন্ট মার্কেটিং এর সাথে জোরালো ভাবে রয়েছে।

কনটেন্ট মার্কেটিং হলো বৃহত্তর এবং অগত্যা এটা এসইও গোল এর মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়ঃ ‍উদাহরণস্বরূপ যদি বলি যে, একজন প্রকাশক ভোক্তা কে আর্কষনীয় করার জন্য চমৎকার কনটেন্ট লিখা উচিত।

কিভাবে কনটেন্ট মার্কেটিং এবং র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) এক সাথে কাজ করেঃ

কোন ধরণের কনটেন্ট লিখবেন এবং কোন ধরনের কনটেন্ট অপরিহায্য করবেন সেটি আপনাকে নিজে বিবেচনা করতে হবে। কনটেন্ট মার্কেটিং অনেক গুরুত্বর্পূন দিক আপনার ব্যবসার/সাইটের জন্য। যদি আপনি ব্যবসাক/আপনার সাইট কে দ্রুত র‌্যাংক করাতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার কনটেন্ট উজ্জল ও সুন্দর হতে হবে।

1

  • যখন আপনি উন্নত মানের কনটেন্ট তৈরি করছেন কিন্তু আপনি অন সাইট এসইওর বুনিয়াদি হচ্ছেন না তখন আপনার কনটেন্ট মার্কেটিং-এর অনেক ক্ষতি হবে।
  • একটি উদাহরণ স্বরূপ বলি, ধরুন আপনার সাইটা একটা প্লান্টি খেয়েছে গুগোল এর কাছ। প্লান্টি গাওয়ার পড় আপনার সাইটের কোন পেজ গুগোলো প্রোপারলি ইন্ডেক্সিং করতে পারছেন না। ঠিক তখন আপনি যান একজন র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) এক্সর্পাট এবং ভাল মানের কনটেন্ট রাইটারের কাছে।তখন আপনার র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) এক্সর্পাট এবং কনটেন্ট রাইটারের এক সাথে দুজনের কাজ করার প্রয়োজন পড়লো কেন। বিষয় টা পদর্শন করুন পরিসংখান ভাবে। এই অগ্রতা সব সময় হয়েছে কি না।

 নিচে কনটেন্ট এবং র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) এক সাথে কাজ করার কিছু উপায় আছেঃ

  1.  অরজিনাল এবং কোয়ালিটি কনটেন্ট তৈরি করুনঃ পাঠক/স্রোতা/দর্শক সম্পর্কে ধারনা তৈরি করুন যে তার কি পছন্দ করে, কোন ধরনের কন্টেণ্ট তাদের বেশি আকর্ষন করে, কোন ধরনের কন্টেন্ট তারা সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে এই বিষয়গুলো পর্যালোচনা করে তাদের সম্পর্কে একটা ধারনা তৈরি করে কন্টেণ্ট টা করতে হবে এবং অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে কন্টেণ্ট টা যেন অরজিনাল এবং কোয়ালিটি সর্ম্পূণ হয়।

High-Quality-Content

  1. এভারগ্রীন কন্টেণ্ট এবং এসইওঃ তৈরি করুন এভারগ্রীন কন্টেণ্ট। এভারগ্রীন কন্টেণ্ট গুগোল র‌্যাংকিং-এর ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বর্পূণ কৌশল বা মহা কৌশল। এভারগ্রীন কন্টেণ্ট র্দীঘ মেয়াদী ট্রাফিক ধরে রাখে। গুগোল এমন কন্টেন্ট র‌্যাংকিং-এ তোলে যে গুলো ভোক্তাদের/রিডারদের কাছে উপকারী মনে হয়। এভারগ্রীন কন্টেণ্ট দিয়ে র্দীঘ মেয়াদী র‌্যাংকিং/র্সাস রেজাল্টে ভালো স্থান সঞ্চালন করা যায়।

evergreen-blog-content

  1. কিওর্য়াড রির্সাসঃ কিওয়ার্ড হচ্ছে এমন এক ধরনের শব্দ যার মাধ্যমে আমরা গুগল, বিং বা অন্য সার্চ ইঞ্জিনগুলোতে অনুসন্ধান করে থাকি। ধরুন আপনি গুগলে অনুসন্ধান করছেন “weight lose” নিয়ে, তাহলে “weight lose” হচ্ছে আপনার একটি কিওয়ার্ড। আর এই সব কিওয়ার্ড গুলো নিয়ে রিসার্চ বা অনুসন্ধান করে আদর্শ কিওয়ার্ড বাছাই করাই হল কিওয়ার্ড রিসার্চ।

images 222

  1. কিওর্য়াড কম্পিটিশান অ্যানালাইসসঃ কিওয়ার্ড কম্পিটিশান অ্যানালাইসিস প্রক্রিয়াটি জানতে হলে আপনাকে অবশ্যই এসইও-র প্রতিটা দিক ভাল জানতে হবে। যেমনঃ-
  • পেজ র‍্যাংক কি? কিভাবে নির্ধারন হয়?
  • ডোমিন এইজ (Age) কি? EMD কি?
  • ডোমেইন অথরিটি কি? ডোমেইন অথ্রিটি ও পেজ/পোস্ট অথরিটির পার্থক্য কি?
  • টাইটেল ও ডেস্ক্রিপশন ট্যাগ কি? এই ট্যাগ কিভাবে এসইও তে প্রভাব ফেলে?
  • ব্যাক লিংক কি? ব্যাক লিংক ভাবে পাওয়া যায়? Do-follow, No-follow ব্যাংক লিংঙ্ক কি?
  • ইন্টারনাল লিংক ও এক্সস্টার্নাল লিংক কি? কি ভাবে কাজ করে?
  • এলেক্সা র‍্যাংক কি? এলেক্সারেংক কি? এলেক্সা রেংক কি ভাবে কাজ করে?
  1. লিংক বিল্ডিংঃ লিংক বিল্ডিং হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যা হাইপারলিংকের মাধ্যমে আপনার অয়েব সাইটের জন্য ভিজিটর নিয়ে আসে অন্যান্য অয়েব সাইট থেকে । একটি হাইপারলিংক (সাধারন মাত্র একটি লিংক বলা হয়) পারে ভোক্তাদের সঠিক পথে পরিচালনা করতে। ওয়েব সাইটে একটি লিংক ব্যবহার করে পুরো সার্চ ইঞ্জিনে চলাচল করা যায়; আপনি তাদের ওয়েব সাইটে যে কোন একটি পেজে লিংক বিল্ডিং করবেন এবং এর ফলে আপনার পুড়ো ওয়েব সাইটে ভিজিটর নিয়ে আসবে। লিংক বিল্ডিং করার অনেক কৌশন আছে এবং তার অসুবিধা তারতম্য। এসইও এক্সপার্টরা অনেক সময় ব্যায় করে এই কাজে, কারণ তারা জানে হাই কোয়ালিটি লিংক বিল্ডিংই ব্যবসাকে সাফল্য চুড়ায় পৌছাতে পাড়ে।

best-link-building-strategies-2015

  1. হেডলাইনঃ হেডলাইন অনেক গুরুত্বর্পূণ একটা বিষয়। হেডলাইন টা এমন হতে হবে যাতে ভোক্তাদের কনভেন্স করে আপনার সাইটে নিয়ে আশে। উদাহরন হিসেবে বলা যায় যে, ধরুন আপনি এক টা ল্যান্ডিং পেজ করলেন সেখানে ইমেইল দেওয়ার জন্য আপনি এমট একটি হেডলাইন/টাইটেল ব্যবহার করবেন যাতে ইমেইলটি দিতে বাধ্য হয়।

attractive-headline

তবে মনে রাখতে হবে হেডলাইন যাতে বেশি বড় না হয় এ দিকে নজর রাখতে হবে।

  • গুগোল র্সাচ ফলাফলে শর্ট ফলাফল মানুষকে কনভেন্স করে বেশি, তাই এমন আকর্শনীয় হতে হবে যাতে সেটা দৃষমান হয়।
  • সোস্যাল শেয়ারিং যখন করবেন তখন দেখবেন টাইটেল টা আকর্শনীয় হওয়ার ফলে বেশি শেয়ার হচ্ছে।
  • ইমেল মার্কেটিং যখন করবেন তখন টাইটেল/হেডলাই টা যেন এট্রাকটিভ বা কিল্কিএবল হয়। সে দিকে খেয়াল রাখবেন।

ইন সামারীঃ এসইও এবং কনটেন্ট বিভিন্ন দক্ষতা ও জ্ঞানের উপড় সাফল্য র্নিভর করে। কনটেন্টট র্টামস, রাইটিং নলেজ, অভন্ত্যরীন লিংক, টাইটেল অপটিমাইজেশন, কিওর্য়াড রিসার্স, কিওর্য়াড এ্যনালাইসিস এগুলো সর্ম্পূন টাই হলো র্সাচ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন (এসইও) গোল। এসইও গোলো কোন রকম আপোশ করা উচিত নয়।

Leave a Reply