হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি – অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

আজকের এই ব্লগপোস্টটি একটি কেস স্টাডি। কিন্তু এটা হবে শুধু মাত্র হোস্টিং এফিলিয়েট নিয়ে। আপনি ইচ্ছা করলে একই মেথড ট্রাই করে অন্যান্য প্রোডাক্টেরও এফিলিয়েট করতে পারবেন। তবে হ্যাঁ, অবশ্যই প্রোডাক্টভেদে আপনার কাজেরও পরিবর্তন করতে হবে এবং আসা করছি আপনি ওয়েব থেকে আইডিয়া কালেক্ট করে বুঝতে পারবেন এবং তার কাজ শুরু করার মাধ্যমে সমস্যায় পড়বেন এবং সিনিয়রদের থেকে ব্যাপারগুলো বুঝে নিতে পারবেন।

মূলত যারা SEO, Blogging, Internet Marketing নিস নিয়ে কাজ করেন তাহলে জন্য আসা করছি পোস্টটি কাজে দিবে।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়আর নতুনদের জন্য একটা কথা বলতে চাই, আপনি যদি কেবলমাত্র শুরু করে থাকেন তাহলে দয়া করে এই নিস নিয়ে আগাবেন না। কেননা, আপনি আসলে মূলত যাদের টার্গেট করবেন তারাও মার্কেটার হবে বেশির ভাগ এই নিসে। তাই আপনার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে অনেক এবং অনেক পরিশ্রমও করতে হবে। শুধু মাত্র কাজ করলেই হবে না, স্মার্টওয়ে তেও কাজ করতে হবে যদি আপনি এই নিস নিয়ে কাজ করতে চান। তাই আসা করছি যারা এই নিস নিয়ে কাজ করবেন সেগুলো মাথায় রেখেই করবেন ।

প্রথমে আসি, আসলে কিভাবে আপনি যেকোন ভাল নিস খুজে পাবেন? আর যেভাবে খুজি। প্রথমে আমি গুগুল ডট কমে যাই এবং সেখানে আমি সার্চ করি Monthly Income Report এইভাবে। তো দেখুন কি ফলাফল আসে।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

Monthly Income Report

এভাবে আপনি প্রথম পেইজের গুলো দেখতে পারেন এবং ২য় পেইজের গুলোও দেখতে পারেন কিন্তু ৩য় পেইজে যাওয়ার কোন দরকার নেই। কেননা আপনি যদি সত্যি আসলেই প্রথম দুই পেইজে কোন আইডিয়া না পান তাহলে ৩য় কেন ১০০তম পেইজে গেলেও কোন আইডিয়া পাবেন না। বরং শুধু শুধু আপনার সময় নষ্ট হবে। তাই মনোযোগ দিয়ে আপনি শুধু মাত্র ১ম দুই পেইজেই দেখেন।

এবার আসেন আমরা প্রথমে ফলাফল পেইজটিতে যাই।

Smart Passive Income Dot com

এই ব্লগটিকে চিনে না এমন মার্কেটার হয়ত দুনিয়াতে কমই পাওয়া যায়। যাই হোক, এখন এই ব্লগটিকে নিয়ে লেখতে হবে অনেক সময় লেগে যাবে। তবে ইনশাল্লাহ কোন একদিন সফল ব্লগগুলোর ডিটেলস লিখলে এই ব্লগের সম্পর্কে বিস্তারিত লিখব।

আপনার ইচ্ছা করলে এই লিংকে থেকে Smart Passive Income Dot Com’র যাবতীয় সকল ইনকাম সোর্স সম্পর্কে জানতে পারবেন। উনি খুবই সুন্দর ভাবে উনার প্রতিটা কাজের ডিটেলস এই পেইজে বলে দিয়েছে। এবং এখানে October 2008 থেকে এখন পর্যন্ত সবগুলো মাসের ইনকাম সোর্স প্রায় দেওয়া আছে।

 Smart Passive Income Report

আসা করছি আপনারা শুধু মাত্র এই পেইজ থেকেই অনেক আইডিয়া পেয়ে যাবেন। শুধু আইডিয়া কালেক্ট করে বসে থাকলে চলবে না, সেগুলোকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

 তো যেহেতু আজকের মূল বিষয় হচ্ছে শুধু মাত্র হোস্টিং এফিলিয়েট নিয়ে, তাই আমি শুধু মাত্র উনার হোস্টিং এফিলিয়েট নিয়ে কথা বলব এখানে। এবছরে উনি হোস্টিং এফিলিয়েট থেকে কত ইনকাম করেছেন এবং তার জন্য কি পরিমাণ কাজ উনি করেছেন তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করব।

January -$40,200.00

February-$37,650.00

March-$75,750.00

April-$37,500.00

May-$39,000

June-$73,500

July-$46,200

August-$45,600

জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত উনার শুধু মাত্র হোস্টিং এফিলিয়েট দিয়ে ইনকাম হচ্ছে 395,400$

৮ মাসে উনার ইনকাম হচ্ছে ৩৯৫৪০০ ডলার । তার মানে প্রতি মাসে উনার ইনকাম হচ্ছে গড়ে ৪৯৪২৫ ডলার। যা আমাদের দেশীয় টাকাতে আসে প্রায় ৩৯৫৪০০০৳ । অংকেঃ ৩৯ লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা/প্রতি মাসে।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়
একটি বার চিন্তা করে দেখেন ৩৯ লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা/প্রতি মাসে উনি পাচ্ছেন। অথচ আমাদের দেশে সবচেয়ে সরকারি উচ্চপদের চাকুরিতে বেতন হয়ত স্কিল হিসেবে ৫০ হাজার টাকা থেকে ১ লক্ষ টাকা। অথচ এই সরকারি চাকুরির জন্য আমরা সারাটা জীবন কোন কষ্ট করি। ২৫-২৭ বছর শুধু মাত্র ইচ্ছা না থাকা স্বেতেও রাতদিন ২৪ ঘন্টা আমাদের শুধু মাত্র পড়া-শুনার মাঝে থাকতে হয়। যায় হোক আমি কাউকে উপদেশ দিচ্ছি না আপনি পড়ালেখা ছেড়ে দেন, এটা আপনার ব্যাপার। তবে আমার ক্ষেত্রে সত্যি করে বলছি হয়ত আপনি শুধু মাত্র সার্টিফিকেটের জন্য ইন্টারপর্যন্ত পড়লেও পড়তে পারি না পড়লেও নাই।

২১ বছরের গেজুয়েট Vs ফ্রিল্যাঞ্চার এটা আমার একটা ফেসবুক নোট, পড়ে নিতে পারেন হয়ত আপনাদের কাজে লাগবে।

এখন আসেন দেখে নেই, প্রতি মাসে ৩৯৫৪০০০৳ উনি কিভাবে ইনকাম করেছে। সত্যি করে বলছি একেবারে অভাক হয়ে যাবেন। উনার এই সব ইনকাম আসে শুধু মাত্র একটা ইউটিউব ভিডিও থেকে ।

ভিডিও লিংকটি এখানে ক্লিক করুক মাত্র ৮ মিনিটের একটা ভিডিও। কিন্তু বর্তমানে থাকে মাসে ৩৯৫৪০০০৳ এনে দিচ্ছে এবং তার জন্য এখন তাকে ার কোন কাজই করতে হচ্ছে না। ২০০৯ সালের ভিডিওটা, দেখেন তখন কিন্তু তার ভিডিওটাও এতটা ভাল ছিল না, কিন্তু বর্তমানে উনি এই ফিল্ডের “কিং” ।

শুধু মাত্র একটা ইউটিউব ভিডিও দিয়ে উনি যে কত টাকা ইনকাম করেছেন তা আসলে কল্পনাও করা যায় না, এখানে তো শুধু মাত্র আপনাদের আমি ৮ মাসের হিসাবটা গড় করে দিলাম। কয়েকদিন সময় নিয়ে উনার ২০০৮ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ইনকাম রিপোর্টগুলো পড়বেন। অনেক কিছু জানতে পারবেন, উনি কিভাবে কাজ করছে, কি পরিমাণ কাজ করেছে, কিভাবে ইনকাম করছে সব কিছু উনি বিস্তারিত লিখেন উনার ইনকাম রিপোর্টে।

আমি একটা লিস্ট করেছিলাম যারা প্রতিমাসে তাদের ইনকাম রিপোর্ট শেয়ার করে। আসা করছি এই লিস্টতি আপনাদের অনেক কাজ দিবে। ইনশাল্লাহ আমি চেষ্টা করব আর ভাল একটা লিস্ট করে আমার ব্লগে প্রকাশ করার জন্য। আপাতত আপনারা এই লিস্টটা দেখতে পারেন:)

Bloggers Income Report

আমি আপনাদের আরেকজন নাম বলে দিচ্ছি যে প্রতি মাসে প্রায় ৫০০-৮০০ ডলার+ ইনকাম করে শুধু মাত্র হোস্টিং থেকে এবং উনারও ইনকাম শুধু মাত্র একটা মাত্র আর্টিকেল থেকে। কে উনি? উনার নামটা প্রকাশ করব না, আপনারা গেস করে নিয়েন। তবে এটা বলে দিচ্ছি উনিও একজন “মার্কেটার কিং”

এবার আসুন আপনিও কিভাবে সেই কাজটা করতে পারবেন। আচ্ছা তার আগে একটা জিনিস দেখুন, উনারা কিন্তু একটা একটা কিং এবং উনাদের ব্লগগুলো খুবই পরিচিত। তাই উনাদের এখন আর কোন কাজই করতে হয় না এবং উনাদের ব্লগগুলো আউথিরিটিও অনেক।

আপনার যদি কোন ভাল আউথিরিটি ব্লগ থাকে তাহলে আপনিও তাদের মত করে কাজ করতে পারবেন। কিন্তু শুধু মাত্র আউথিরিটি ব্লগ থাকলেই হবে না। যেমনঃ আপনার একটা অনেক ভাল হেলথ নিস ব্লগ আছে, এখন যদি আপনি ঐখানে হোস্টিং’র এফিলিয়েট করেন তাহলে আপনাকে আসলে গাঁদা ছাড়া লোকে ার কিছু বলবে না। আপনি তো হোস্টিং এফিলিয়েট থেকে একটাও পাবেন না বরং আপনার ব্লগের আউথিরিটিও হাড়াবেন। তাই এমন কাজটি কখনোই করবেন না ।

“যদি আপনার ব্লগিং অথবা মার্কেটিং নিস ব্লগ থাকে তাহলে আপনি করতে পারেন”

এখন আপনার কথা হচ্ছে এমন আউথিরিটি ব্লগ না রেখেও আপনি কিভাবে হোস্টিং এফিলিয়েট করতে পারবেন ? ওকে কোন সমস্যা নাই। আমি এমন অনেক জনকেই চিনি যাদের কোন আউথিরিটি ব্লগ নেই কিন্তু তাদের ইনকাম মাশাল্লাহ এবং তার জন্য তাদের শুধু মাত্র সেটআপ পয়েন্টে কাজ করতে হয় তারপর থেকে ইনকাম আসে ঐ খানে থেকে ইনভেস্ট করে আবার ROI আসে  এবং মোটামোটি ভালই ইনকাম করে থাকে।

প্রথমে আগে কিছু পজিটিভ কথা বলে নেই যদি আপনি হোস্টিং নিস নিয়ে কাজ করেন কি কি সুবিধা পাবেনঃ

 ১। আপনি যদি কোন নতুন কোম্পানি’র হোস্টিং প্রোমট করেন আপনার ব্লগে তাহলে আপনি ঐ কোম্পানির কাছে থেকে আপনার জন্য আজীবনের জন্য ফ্রী হোস্টিং পেতে পারেন

২। নতুন কোম্পানি হলে তারা আপনাকে ফ্রী হোস্টিং রিভিউ করার পাশাপাশি সরাসরি টাকাও অফার করবে এবং সেই সাথে এফিলিয়েট তো আছেই।

৩। আপনি ইচ্ছা করলে আপনার জন্য কাস্টম কুপন করতে পারবেন।

আসলে সত্যি বলতে এখানে থেকে আপনি অনেক অনেক অনেক সুযোগ পেতে পারেন।

নেগেটিভ পয়েন্টগুলো হচ্ছেঃ

১। কম্পিটেশন অনেক। যদি সঠিকভাবে কাজ করতে না পারেন তাহলে হাজার কাজ করেও ফলাফল পাবেন না, পেলেও আপনার জন্য তা আসলে কোন প্রফিটের মুখ দেখাবে না।

কেননা, আপনি যদি এখন ৩ মাস কাজ করে এরপর থেকে প্রতিমাসে ১০ ডলার করে ইনকাম করেন তাহলে তো কোন কাজেই দিবে না। কেননা, ৩ মাসে অন্তত আপনি ৩০০ ঘন্টা কাজ করবেন, তো ৩০০*১০= ৩০০০ ডলার আপনি ইনভেস্ট করলেন। কিন্তু একটু রিসার্চের অভাবে আপনি পুরাই লস করলেন।

২। সময়ের অভাব। শুরু করে মাঝপথে ছেড়ে দিলেন। হয়ত আপনি ৩ মাস কাজ করলেন কিন্তু হয়ত আপনার মাত্র ৪ মাস কাজ করলেই আপনি সফলতা পেতেন, তাই মাঝপথে ছেড়ে দিবেন না। এর থেকে ভাল শুরুতে দরকার পড়ে ৭ দিনের জায়গায় ১৪ দিন সময় দেন।

 এবার আপনাকে একটা পয়েন্ট বলি যেটার জন্যই মূলত মানুষ এই নিস নিয়ে কাজ করে, সেটা হচ্ছে, আপনি মনে করেন প্রথমে মাসে ১০ জন রেফার করে পেলেন এবং প্রতি সেলে ২ ডলার করে পেলেন। তাহলে ২০ ডলার। এখন কথা হচ্ছে ২য় মাসে কি পাবেন? নতুন ১০ জনের জন্য আবার কাজ করতে হবে? জি হ্যাঁ, আপনি করলেও করতে পারেন ার যদি চান না এত সময় নেই। তাহলে আপনার জন্য সুখবর হচ্ছে দুনিয়া অনেক সেরা সেরা কোম্পানিও আছে যারা আপনাকে আজীবন পেমেন্ট করে যাবেন। এছাড়াও অনেক আছে যেমনঃ আপনি যদি একজন রেফার করেন তাহলে একটা % পাবেন এবং যদি ১০ মাসে রেফার করতে পারেন তাহলে আপনি % পাবেন।

 ধরুন যেমনঃ অ্যামাজনে আপনি যত বেশি প্রোডাক্ট সেল করতে পারবেন আপনাকে কমিশনো তত বেশি দিবে।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

অ্যামাজন কমিশন চার্ট

তেমনি হোস্টিং কোম্পানিগুলোও এইরকম অফার দিয়ে থাকে।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

হোস্টিং কমিশন

আসা করছি বুঝতে পেরেছেন। ব্যাপারগুলো।

 এবার প্রশ্ন হচ্ছে আপনি কোন কোম্পানি প্রমোট করবেন? প্রথমে আপনি একটা লিস্ট করবেন বড় বড় মার্কেটিং নিস ব্লগগুলোর, কেননা তারা প্রায় সবাই হোস্টিং প্রোমোট করে থাকে। এরপর আপনি দেখেন কে কোন প্রোডাক্ট বা কোন হোস্টিং কোম্পানি প্রমোট করতেছে। তো আপনি ঐখানে থেকে আইডিয়া পেয়ে যাবেন। আরেকটা জিনিস হচ্ছে যে, যারা বড় বড় মার্কেটার তারা সব-সময় প্রথমে আগে নিজে প্রোডাক্টটা ব্যাবহার করে থাকে কেননা তারা ঐগুলো ফ্রীতেই পায়। রিভিউ করার জন্য কোম্পানিগুলো অফার করে। তো তারা শুধু মাত্র ভাল প্রোডাক্টগুলো প্রমোট করে। তাই প্রোডাক্ট কুয়ালিটি নিয়ে আপনাকে কোন চিন্তাই করতে হবে না

এবার আসুন দেখি কিভাবে আপনি অনেকগুলো কোম্পানি নিয়ে একসাথে কোন আউথিরিটি ব্লগ ছাড়াই ভাল পরিমাণের ইনকাম করতে পারবেন শুধু মাত্র হোস্টিং এফিলিয়েট থেকে।।

“দয়া করে আপনি আমার ব্লগের লিংক চাবেন না। কেন আমার লিংকই লাগবে? আমি তো আপনার জন্য উদাহরণ স্বরূপ ব্লগের

ডিটেলস বলেই দিচ্ছি”

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

এভাবে আপনি কয়েকটা কোম্পানি’র সম্পর্কে লিখে শুধু মাত্র আপনি তাদেরকে সরাসরি সাইটে দিয়ে দিবেন।

 কেমন হবে লিংকটা দেখাচ্ছি এখানেঃ

Smart Passive income’র ভিডিওটিতে যেভাবে উনি সেলস কভার করেন।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়
এবার আপনি যদি ইউটিউব ভিডিও’র নিসে লিংকটা দেখেন এবং ঐখানে ক্লিক করেন তাহলে এইরকম একটা পেইজ চলে আসবে।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

ঐখানে যে লিংকের শেষে patflynn লেখা আছে মূলত এটাই হচ্ছে তার ইউনিক আইডি। আপনি ইচ্ছা করলে আপনার নাম অথবা কোন কাস্টম কিছু দিতে পারেন

নোটঃ আপনাকে এর জন্য কোন প্রিমিয়াম থিম কিনতে হবে না, তবে যদি কিনেন তাহলেো সমস্যা নেই। তবে চেষ্টা করবেন কোন ক্র্যাক ভার্সন ব্যাবহার না করতে।

আমি এখন আমার হোটিং সাইটের জন্য একটা ফ্রী থিম ব্যাবহার করছি। একদমই নর্মাল একটা ফ্রী থিম।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

ফ্রী থিম

ঠিক একদমই এইরকম নর্মাল একটা সাইট। যদি আপনারা কেউ এই থিমটা ব্যাবহার করতে চান তাহলে দেখতে পারেন। থিমটা দেখতে এইখানে ক্লিক করুন তাহলে হবে।

সেটআপ পয়েন্টে আপনাকে যা যা করতে হবেঃ

১। প্রথমে আগে আপনি ভাল ভাল হোস্টিং কোম্পানিগুলো খুজে বের করবেন। বের করার নিয়ম আমি উপরে বলেই দিয়েছি।

২। এরপর আপনার কাজ হবে ভাল একটা ডোমেইন নেওয়া এবং তারপর সাইট্টা Word-Press করে নেওয়া এবং ভাল হোস্টিংএ হোস্ট করা। এবং এর জন্য আপনি আমার একটা পরিচিত ভাইয়ের থেকে হোস্টিং নিতে পারেন। জি আপনার প্রায় ব্লগগুলোই উনার কাছে হোস্ট করা এবং দাম খুবই হাতের নাগালে। আপনি চাইলে ব্যাবহার করে দেখতে পারেন। HOST OMEGA

নোটঃ না ভাই কোন এফিলিয়েট লিংক না। দেশি লোকের কাছ থেকে নিলে অনেক সুবিধা বিশেষ করে আপনার যদি হোস্টিং এইসব ব্যাপার ভাল জ্ঞান না থাকে। যেমন, আমি তাকে যখন যা বলি সে আমাকে সাহায্য করে। এবং প্রাইস লিস্টটাও দেখে নিবেন, আসা করছি যেকেউই ব্যাবহার করতে পারবেন। এবং আপনি চাইলে HOST OMEGA থেকে আপনাকে Word-Press সাইট বানিয়ে দিতে তারা সাহায্য করবে।

 ৩। এরপরের কাজ হচ্ছে আপনাকে ভালভাবে কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে হবে। আপনি যদি সঠিক কিওয়ার্ড খুজে বের করতে পারেন তাহলে আপনি লালে লাল 😛 মানে, আপনি সফল হতে পারবেন এবং তা খুবই দ্রুত। কিওয়ার্ড রিসার্চের উপর Al Amin Kabir ভাইয়ের একটা বিস্তারিত পোস্ট আছে, আপনি ইচ্ছা করলে পড়ে নিতে পারেন। আপনার অনেক কাজে লাগবে হয়ত  কিওয়ার্ড রিসার্চ গাইড লাইন পোস্টটি এখানে থেকে পড়তে পারেন।

৪। এরপর হচ্ছে আপনাকে কন্টেন্ট সাজাতে হবে এবং আপনার ব্লগে পাবলিশ করতে হবে। এবং আপনাকে এখানে যে ধরনের কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবেঃ রিভিউ এবং গাইডলাইন।

কেননা, আপনি যদি শুধু মাত্র রিভিউ পোস্ট করেন এবং কোন গাইডলাইন পোস্ট না করেন তাহলে আপনার জন্য আসলে এই নিসটা তেমন কাজে দিবে না। আপনাকে মূলত গাইডলাইন পোস্ট দিয়ে রিভিউ পোস্ট ফোকাস করতে হবে।

৫। লিংক বিল্ডিং, আপনি ইচ্ছা করলে আপনার ইচ্ছা মত মেথড/ফর্মুলা ফলো করতে পারেন। তবে আপনি বলব গেস্ট পোস্ট, ওয়েব ২ এবং অন্যব্লগারদের সাথে লিংক বিল্ডআপ।

“আপনি যদি গাইডলাইন পোস্ট ” লিখেন তাহলে অন্যব্লগাররা আপনাকে লিংক দিতে পারেন। এতে আপনার যেমন লিংক বিল্ডআপ হবে তেমনি অন্যদিকে আপনার সেলো বাড়বে। কেননা,

লিংক বিল্ডআপ= সার্চ ইঞ্জিন রেংক = সার্চ ট্রাফিক= সেল= কমিশন 

৬। সব সেটাপের পর আপনাকে চিন্তা করতে হবে কিভাবে আপনি আপনার ব্লগ থেকে সেল ার বেশি কনভার্ট করতে পারেন এবং তার জন্য সবথেকে সেরা হচ্ছে নিজের মেথড।
এখানে কোন আসলে গাইডলাইন বা কিচ্ছু দেওয়া নেই। শুধু একটা পয়েন্ট

“টেস্ট, টেস্ট, টেস্ট, ফেইল, ফেইল, ফেইল, অভিজ্ঞতা, অভিজ্ঞতা, অভিজ্ঞতা এবং তারপর থেকে শুধু সফলতা আর সফলতা”

কিওয়ার্ড ধারণাঃ

আপনি যে হোস্টিং কোম্পানি টার্গেট করেছেন তাদের বিভিন্ন Plan Price.
যেমনঃ Blue Host Baby Plan Review,

এরপর কুপন যেমনঃ Blue Host 30% Discount এইরকম ধরনের কিওয়ার্ড।

আসা করছি আইডিয়া পেয়েছেন। দুঃখিত এর বেশি কিওয়ার্ড আইডিয়া আমি দিতে পারছি না ফ্রীতে 😛

কন্টেন্ট আইডিয়া পাওয়ার জন্য আপনি বেশি বেশি রিসার্চ করতে পারেন। বিভিন্ন ফরমে গিয়ে প্রশ্ন জিজ্ঞাস করতে পারেন। আপনি দেখবেন ফেসবুক অনেক লোক হোস্টিং রিভিউ নিয়ে জানতে চাচ্ছে এবং তারা অনেক সময় অনেক কোম্পানি’র কুপন চাচ্ছে। তো এক কথায় আপনাকে প্রথমে আইডিয়া কালেক্ট করতে হবে। আর চেষ্টা করবেন বেশি বেশি গাইডলাইন পোস্ট লেখার। How To পোস্টগুলো দিখে বেশি ফোকাস দিবেন। এবং Pillar Content লিখবেন যাতে আপনি সবকিছুই কভার করতে পারেন। আপনার এখানে আউথিরিটি ব্লগের মত আপনাকে প্রতিদিন বা প্রতি সপ্তাহে বা প্রতিমাসে এইরকম কোন টার্গেট করতে হবে না। আপনি ইচ্ছা করলে একটা এইরকম ব্লগ মাত্র ১০-১৫ টা কন্টেন্ট দিয়েই করতে পারেন। কিন্তু চেষ্টা করবেন সেরা কন্টেন্ট দিতে। এবং ব্লগ সেটাপের জন্য আপনার ১০ টা কন্টেন্ট থাকলেই হবে এবং চেষ্টা করবেন প্রতিটা কন্টেন্ট যেন ১০০০ ওয়ার্ডের উপরে হয়। ১০০০ ওয়ার্ড বা তার বেশি হতে হবে এমনই যে তা কিন্তু না। তবে এখানে একটা জিনিস বলি, যদি দেখেন যে আপনার কম্পিটিটররা ১০০০ ওয়ার্ড কন্টেন্ট লিখেছি আপনি চেষ্টা করবেন ২০০০ ওয়ার্ড লেখার এতে করে আপনি যেমন গুগুলের কাছে সুনজরে পড়বেন তেমনি ভাবে ভাল এবং ইনফর্মেশন কন্টেন্টের জন্য আপনি অনেক অনেক লিংকো পাবেন যার জন্য আপনাকে কোন টাকা –পয়সা খরচ করতে হবে না।

এবং আপনাকে আমি আরেকটা জিনিস বলছি যে অনেকেই বলে লিংক কেনা বেচা ব্ল্যাক হেট। জি হ্যাঁ , এটা ব্ল্যাক হেট যদি আপনি আসলে ঠিক ভাবে ব্যাবহার করতে না পারেন। কিন্তু যদি আসলে আপনি এটা ঠিক ভাবে ব্যাবহার করতে পারেন তাহলে আপনি অনেক ভাল ফলাফল পাবেন।।

আপনি হয়ত Neil Patel’র নাম শুনে থাকবেন। উনাকে অনেকে SEO God Father, SEO BABA বলে থাকে 😛 আসলেই উনি তাই । উনি একটা নতুন ব্লগ শুরু করেছেন যেখানে থেকে উনি $100K Challenge নিয়েছেন। উনার সেই ব্লগটা একটু দেখু আসুন। হেলথ নিস একটা ব্লগ। যারা হেলথ নিস নিয়ে কাজ করেন বা করতে ইচ্ছুক তারা এই ব্লগটা একবারে হলেও গুরে আসবেন এবং দেখবেন উনি আসলে কিভাবে কাজ করতেছে । Nutritionsecrets

তো এখানে শুধু মাত্র উনার কথা উল্লেখ করলাম এই কারনেই যে, উনার মত মার্কেটাররাও কিন্তু লিংক কিনে।

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

হোস্টিং এফিলিয়েট কেস স্টাডি - অ্যাফিলেয়েটের মাধ্যমে আয়ের অন্যতম উপায়

নোটঃ এটা আমার কোন সাইট নই। আমার একজন ফ্রেডের সাইটের এবং সে একটা গ্রুপে পোস্ট করেছিল !

তো আসা করছি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। তবে নতুনদের জন্য আসলে এটা প্রথম দিকে না করাটাই ভাল। কেননা, এইটা করতে গিয়ে ভালর থেকে আপনি আর বেশি খারাপ ফলাফল পেতে পারেন যদি আপনি সঠিকভাবে করতে না পারেন।

 সর্বশেষে আপনাদের জন্য কয়েকটি সাইট দিচ্ছি, আসা করছি এই সাইটগুলো ফলো করলে আপনারা আর ভাল আইডিয়া কালেক্ট করতে পারবেন।

আসা করছি আপনারা আর্টিকেলটি পড়ে উপকৃত হবেন। কোন প্রশ্ন থাকলে সরাসরি জিজ্ঞাস করবেন আমাকে। ইনশাল্লাহ উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব যদি জানা থাকে। আমাকে সরাসরি প্রশ্ন করতে পারবেন সরাসরি আমাকে পেইজেঃ Tonmoy Parves

 ভাল লাগলে লেখাটা শেয়ার করতে ভুলবেন না এবং কমেন্ট করতেও ভুলবেন না।

Leave a Reply